কাটাকাটি ০৯

শুরু আর শেষের অনেক সময় মিল থাকে না। কিন্তু আজকে মনে হচ্ছিল একটু মিল থাকলে তেমন কোন ক্ষতি ছিল না বরং লাভ ছিল বেশী। আজকে অনার্স জীবনের শেষ কোর্স পরীক্ষা দিয়ে দিলাম। এরপর বাকী থাকে কম্প্রেহেন্সিভ আর ভাইভা। আমাদের ফার্স্ট ইয়ারের প্রথম বিষয়ের যে ম্যাডাম কোর্স টিচার ছিলেন আজকে আবার শেষ পরীক্ষার দিনে উনার কোর্স ছিল। ঐ পরীক্ষাটা সম্ভবত আমার ইউনী লাইফের অন্যতম সেরা পরীক্ষা হয়েছিল আর আজকের টা? ঠিক উলটো। নাহ সময় কে নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা থাকলে আজকের ঘটনা প্রবাহ কে কিছুটা উলটা পালটা করে দিতাম।

কালকে বিসিএসের প্রিলি পরীক্ষা ছিল। আমাদের ব্যাচের মধ্যে ইউনীতে খালি ইকোনোমিক্স আর সোস্যাল সায়েন্স ছাড়া কেউ দিতে পারে নি। কি অদ্ভুত ব্যাপার! আমরা সবাই একসাথে এক ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে ভর্তি হলাম ইউনীতে তারপর খালি স্যারদের গাফিলতির কারণে আমরা অনেকেই এক বছর পিছিয়ে গেলাম। নাহ! কি আর করা, এই ভাগ্য।

আমি সম্ভবত বড় বেশী অগোছালো। সবার কত কত পরিকল্পনা পরীক্ষার পর কি করবে তা নিয়ে। চারিদিকে নানা রকম ক্যারিয়ার প্ল্যানের গল্প কিন্তু আমার কোন গল্প নাই। একেক দিন আড্ডায় এখন যখন এইসব কথাবার্তা আসে তখন চুপ মেরে বসে থাকি, বাকীদের কথা শুনি। কেউ প্রশ্ন করলে শুধু উত্তর দিই- দেখি কি করা যায়। দেখতে দেখতে সময় চলে এল কিন্তু এখনো কোন কিছুই ঠিক করা হল না। এবার মনে হচ্ছে একটু গোছালো হওয়া দরকার কারণ সময় যাচ্ছে তার নিয়ম মতই।

পরীক্ষার পড়ার সময় কত অদ্ভুত চিন্তাই না মাথায় আসে। হয়ত পরীক্ষার সময় মাথা বেশী চলে তাই চিন্তাও বেশী আসে। হঠাত কালকে রাতে মনে হল অনেকদিন কোন গল্প লিখি না, প্রায় এক বছর। রানাপু একবার মেসেজ করেছিল গল্প লিখে মেইল করতে। কিন্তু হায়! সেই ফেব্রুয়ারী গিয়ে আজ জুলাই মাসের শেষ দিন। কিছুই লেখা হল না। গত কয়েকদিন থেকে তাই লজ্জা লাগছে। কবে কথা দিয়েছিলাম কিন্তু কথা রাখা হল না। রানাপু কে গত কয়েকদিন ধরে খোমাখাতা আর সচলে দেখে চুপ মেরে আছি। সহজে লগ ইন হই না। সেই কাকের গল্পের মত, নিজের চোখ বন্ধ করে ভাবছি কেউ বুঝি আর দেখবে না। নাহ, এইবার দরকার হলে গাজাখুরি কিছু একটা লিখে হলেও অন্তত মেইল দিতে হবে।

কমিঊনটি ব্লগের তুলনার ওয়ার্ডপ্রেস, ব্লগস্পটের নিজস্ব ব্লগ গুলোর এক মস্ত সুবিধা আছে। এই যে আজকে যা খুশি লিখছি, যা মনে আসছে তাই কিন্তু চিন্তা করতে হচ্ছে না। কার যদি ইচ্ছে করে তাইলে পড়ছে নাইলে নাই। হয়ত এই লেখাটা এক জন পাঠকও পড়বে না। তাইলে প্রশ্ন আসে তাইলে লেখাটা কার জন্য? উত্তর হল- যে কার জন্য। লেখকের নিজের জন্য, পাঠকের ইচ্ছে হলে তার জন্য। তবে এখানে মন খুলে লিখে যাবার একটা সুবিধা আছে পরে কখনো নিজেকে উলটো পালটে দেখতে চাইলে এর থেকে ভাল দলিল আর কোথাই পাব 🙂

Advertisements

6 thoughts on “কাটাকাটি ০৯

  1. এইবার বুঝতে পারসিস আমি কেন ওয়ার্ডপ্রেসে এসে লুকাইসি!
    কারণ, তোদের মতন মানুষদের ( যারা কিনা সচলে লিখেন ) “এক্সপেকটেশন” পুরানোর মতন লেখা আমি কমিউনিটি ব্লগে লিখতে পারবো না। আমার সেই যোগ্যতা নাই, খায়েশ আছে। তাই, ঘুরেফিরে এই ওয়ার্ডপ্রেসে আমার ঠিকানা করেছি…

    আমারো শেষ একজামটা খুব ভালো ছিলো। ঘটনা প্রবাহ বদলে দিতে পারলে মন্দ হতনা! 😉

  2. আমিও অকর্মাদের দলে।তাই নিজের ব্লগ।অবশ্য কমিউনিটি ব্লগেও লিখি মাঝে সাঝে।ছাই-পাশ লিখে যান,পড়ার জন্য আমী আছি।আমার ব্লগে আপনাদের সবাইকে আমন্ত্রন রইলো, আসবেন কিন্তু

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s