সকালে উঠিয়া আমি মনে মনে বলি

০।
সকালে উঠে মনে মনে আমি অনেক কিছুই বলি কিন্তু মধ্যরাতে বিছানায় পিঠ লাগানোর আগে কয়টা মনে থাকে এটাই হল আসল কথা। প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে ঠিক করি আর না কালকে থেকে ছুটির এই দিনগুলো কাজে লাগাতে হবে কিন্তু কিসের কী। সকালে উঠে যেই কে সেই তাই প্রতিরাতে আবার নতুন করে সকালের জন্য পরিকল্পনা।

১।
তবে আসলেই কিছু একটা করা দরকার এটা টের পাচ্ছি। ছেলেপেলেরা অনেকেই দেখি ডিপার্টমেন্টে মার্স্টাস করবে না বলে ঠিক করেছে। এমবিএ করবে বেশির ভাগ, কেউ কেউ বিদেশ যাবে। রূপা শুনলাম পাবলিক হেলথ এ ভর্তি হবে। আমি আসলে এখনো ঠিকই করতে পারলাম না কী করব মার্স্টাস না এমবিএ। যাই হোক গত দুই দিনে চিন্তা করে দেখলাম মার্স্টাসেই ভর্তি হয়ে যাই। চিন্তা নেই, ভর্তি পরীক্ষা, নতুন কোন জায়গায় খাপ খাওয়ানোর ঝামেলা নেই। এত কিছু চিন্তা করলে অবশ্য ডিপার্টমেন্টে ভর্তি হয়ে যাওয়াই ভাল। অবশ্য আলসে ছেলেদের বেশি চিন্তা না করাই ভাল 😀

২।
আজকে অবশ্য ভালই একটা ডজ খেলাম। সকালে উঠে ভাবলাম যাই একটু ভার্সিটি ঘুরে আসি, অনেকদিন যাওয়া হয় না। একজন আবার বলল আজকে থেকে নাকি লাইব্রেরি খোলা তাই আর ভাবলাম এই চান্সে লাইব্রেরিতেও যাওয়া যায়। কিন্তু কিসের কী! গিয়ে দেখি সব বন্ধ। এমন কী খাওয়ার দোকান গুলো সব বন্ধ। সারা বছর খোলা থাকে যে সাদ্দামের দোকান সেটাও বন্ধ। সাথে দুই বন্ধু ছিল তারা দুপুরের খাবার খাবে কিন্তু ক্যাম্পাসে কোন দোকান খোলা নেই তাই হেটে হেটে আবার চল মামায় চল। গাউসুল আজমের উপর এই দোকান গুলোর খাবার বেশ ভাল। পাশাপাশি দুইটা দোকান, সবাই ডাকে মামা। কেন ডাকে আল্লায় জানে! তবে দুপুর আর রাতে খাওয়ার সময় ক্যাম্পাসের ছেলেপেলেদের দারুণ ভিড় থাকে। অবশ্য যারা কম থায় তাদের জন্য জোড় সংখ্যা গেল ভাল তাইলে খরচ কম পরে।

৩।
কালকে independent এ একটা খবর দেখে মজা লাগল। বাংলাদেশের সাথে মায়ানমার হয়ে চীনের কুনমিং পর্যন্ত সংযোগ সড়ক হচ্ছে। এটা একদিক দিয়ে ভাল একটা খবর। কারণ এর আগ পর্যন্ত যদি দেখি তবে আঞ্চলিক রাজনীতির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল বরাবর একমুখি। লীগ সরকার থাকলে তা কিছুটা ভারতমুখী এবং বিএনপি সরকার থাকলে তা কিছুটা চীনমুখি। কিন্তু আসল কথা হল আমাদের মত ছোট দেশগুলোর উচিত এই সম্পর্ক রক্ষার ক্ষেত্রে কিছুটা ভারসাম্য রক্ষা করা। উচিত এই দুই আঞ্চলিক শক্তির সাথেই সম্পর্ক রেখে নিজেদের অর্থনৈতিক উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। মনে রাখতে এইসব ক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে কোন চুক্তিতেই যাতে আমাদের নিজেদের স্বার্থ ক্ষুন্ন না হয়।

৪।
আজকাল ঢাকায় বেশ বৃষ্টি হচ্ছে, অবশ্য ঢাকার বাইরেও একই অবস্থা। টিভিতে দেখলাম অনেক জায়গায় বন্যা শুরু হয়েছে। আসলে পরিবেশটাই কেমন জানি বদলে যাচ্ছে মনে হয়। এর মধ্যে ঈদের সময় ঢাকায় দুইটা ভূমিকম্প হল। অসময়ে বেশি বৃষ্টি, কিছুদিন পরপর ভূমিকম্প সব যেন একটা সংকেত পাঠাচ্ছে মনে হয়। প্রকৃতি যেন একটা সংকেত পাঠাচ্ছে- আর কত অত্যাচার করবে আমাদের উপর? প্রতিদান একদিন তোমাদের পেতে হবে, ভুল না।

Advertisements

3 thoughts on “সকালে উঠিয়া আমি মনে মনে বলি

  1. এবং আপনার লেখাটা পড়ে অনেক ভাললাগল। বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয়ে যেয়ে যখন দেখলেন সব কিছু বন্ধ। ঈদের ছুটি যদি আরও কিছু দিন বাড়িয়ে দেওয়া যেত তাহলে একটু শান্তিমত রাস্তা ঘাটে চলতে পারতাম। এইযে সব কিছু খোলা শুরু হবে, সাথে শুরু হবে জ্যাম এবং গ্যাঞ্জাম।যাই হোক, লেখাটা পড়ে সত্যি ভাললাগল।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s