এইসব সাদা কাল দিনে ০২

০।
দিনের শেষে আমাদের হিসেবটা কী পুরোই সাফল্য আর ব্যর্থতা নির্ভর? হিসেব করে দেখলাম যেদিন যেদিন দিন ভাল যায়, সব কাজ ঠিকঠাক মত হয়, খারাপ থেকে ভাল খবরের পরিমাণ বেশি থাকে সেইদিন রাতটা প্রচন্ড শান্তি শান্তি লাগে। সেই রাতে ঘুমানোর আগে মনে হয় আগামীকাল সকালে আমার দ্বারা কোন কাজই আর অসম্ভব না। আর যেই দিন ভাল যায় না? কিংবা যেইদিন ভাল থেকে খারাপ খবরের পরিমাণ বেশী থাকে সেইদিন? সেইদিন গুলা থাকে উলটা। প্রায় রাতে বিভিন্ন ব্লগে ঘোরাঘুরি করি, লেখা পড়ি। সেইসব রাতে আর যত ভাল লেখাই হোক কিছুই পড়তে ইচ্ছে করে না সহজে। ফেসবুকে কার স্ট্যাটাসের মজার যুদ্ধে নামতে ইচ্ছে করে না সেই রাতে। ঘুমানোর আগে মনে হয় তোরে দিয়া কিচ্ছু হবে নারে ব্যাটা, কিচ্ছু হবে না।

০১।
ছোটবেলা বই পড়তে ভালবাসি। অবশ্যই পাঠ্যবই না। পাঠ্যবই বাদে গড়গড় করে পড়া যায় এরকম যে কোন বই হাতের কাছে পেলে পড়াই আমার অভ্যাস। মনে আছে ছোটকালে আমাকে বাসায় প্রশ্ন করা হয়েছিল, এত বাইরের বই পড়ি কেন? সোজ়া উত্তর- বই পড়তে ভালবাসি তাই। এর পরের প্রশ্ন- কেন ভালবাস? এবার পড়লাম সমস্যায়, মিষ্টী খেতে ভালবাসি কিন্তু কই সেইটা নিয়ে তো কেউ কখনো প্রশ্ন করে নাই কেন মিষ্টি খেতে ভালবাসি। তাই এই কঠিন প্রশ্নের উত্তর কখনো দেওয়া হয় নায়। বই পড়তে পড়তে নিজের ভিতর নিজের একটা জগত গড়ে উঠল। সেখানে আমিই রাজা। ক্লাসের অমুক প্রতি পরীক্ষায় ফার্স্ট হতে পারে কিন্তু ব্যাটা কি আমার মত টুকি আর ঝায়ের সাথে মহাকাশে ঘুরতে যেতে পারে? কিংবা বিকেলে খেলার মাঠে অমুক ছেলেটা দারূন ফুটবল খেলতে পারে কিন্ত্য ব্যাটা কী আমার মত করবেটের সাথে কূমায়ুনের বাঘটা কে মারতে যেতে পারে? অবশ্যই না, আলবত না। এই রাজ্যে আমিই রাজা।

তো এইখানে ভুল কী হইল? ভুলের শুরুটা হল এইভাবে যে, গড়পড়তা সমবয়সীদের থেকে বই বেশী পড়ার সুবাদে মনের মধ্যে ধারণা জন্মানো শুরু হল যে আমি বহুত কিছু জানি। সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল আমি কিছুটা অর্ন্তমুখী মানুষ। তাই আমার পরিচিত মানুষদের গন্ডি খুব কম। তাই শুধু ক্লাসের ছেলেপেলে কিংবা বিকেলে খেলার মাঠের মধ্যেই আমার পরিচিতদের গন্ডি সীমাবদ্ধ ছিল। একসময় ক্যাডেট কলেজে ভর্তি হওয়ার পর গন্ডি হয়ে গেল কলেজের গুটিকয়েক বন্ধুর মাঝে। এইভাবে সীমাবদ্ধ গন্ডির মাঝে থাকতে থাকতে একসময় কূয়ার ব্যাং নিজেকে সমুদ্রের তিমি ভাবা শুরু করল। আর এইখানেই আমার কৃতজ্ঞতা ব্লগ মাধ্যমের উপর। প্রায় আড়াই বছর ধরে ব্লগিং করতে গিয়ে প্রচুর মানুষের সাথে পরিচয় হয়েছে। আমার মত অর্ন্তরমুখী মানুষের পক্ষে এত বিচিত্র মানুষের সাথে এত কম সময়ে পরিচিত হওয়া ছিল এক কথায় প্রায় অসম্ভব। তো এই পরিচয়ের সূত্র ধরে দেখলাম এই মানুষগুলোর জানার এবং পড়ার পরিধি কত ব্যাপক। এদের মধ্যে বেশির ভাগ আমার একটূ বড় বা সমবয়েসি। অনেকে আবার বেশ ছোটও। এই জানার পরিধি মোটামুটি আমাকে প্রথম একটা ধাক্কা দিল। ধাক্কার পরবর্তি অনুভূতিটা ছিল অনুধাবনের, কূয়োর ব্যাঙের প্রথম সমুদ্র দর্শনের অনুভূতি। ব্লগ মাধ্যমটার প্রতি আমি নানা কারণে বেশ কৃ্তজ্ঞতা অনুধাবন করি। এর একটা হল, আমার নিজের সত্যিকারের সীমাবদ্ধটা বুঝিয়ে দেওয়া কারণ একজন মানুষের নিজের সত্যিকারের সীমাবদ্ধটা বুঝতে পারা একটা জরুরী কাজ।

০২।
কি বলব বলে শুরু করেছিলাম আর কী বলছি। আসলে আজকের দিনটাই কেমন জানি চুপচাপ, হতাশার। তাই লিখতে লিখতে ভাবলাম থাক এইসব ফালতু দিনের কথা। তার থেকে বরং একটা স্বীকারোক্তি দেই, একটা কৃ্তজ্ঞতা স্বীকার করি। তাই এইসব লেখা। নিজের লেখার খাতায় এইসব স্বীকারোক্তি জমা থাক, আজকের দিনের অন্তত একটা ভাল কাজ নিজের খাতায় জমা থাক 🙂

Advertisements

10 thoughts on “এইসব সাদা কাল দিনে ০২

  1. খুব ভালো লাগলো নিবিড়, বিষেশত লেখার ধরন টা। ভাবি এরকম করে লিখবো, ডারেরীর মতো করে। কিন্তু আর হয় না। বেশ কিছু দিন পড় ব্লগ পড়ছি। কিছু লিখছিও না। পুজো সংখা পড়ে সময় কাটছে। আজ খুলেই তোমার ব্লগটা খুঁজছিলাম। ভালো থেক।

    • তাপস দা, লেখালেখি একটা ভ্রান্ত ধারণা। আর আমার এই ডায়েরি টাইপ লেখা একটা ফাকিবাজি প্রচেষ্টা। অন্য কিছু তেমন একটা লিখতে পারি না তাই কী দিয়ে ভাত খাই তাই লিখি প্রতিদিন 🙂

  2. ভাই, এই পোস্টটা পড়ে ভাল লাগল। ধন্যবাদ । আপনি যদি আমাকে একটু হেল্প করতেন তাহলে খুব উপকৃত হতাম । আমি ওয়ার্ডপ্রেস এ নতুন আর এর বেশির ভাগ অপসনই আমি ভালভাবে আয়ত্ন করতে পারি নাই । আপনার কাছে একটা জিনিস জানতে চাই, আপনি কিভাবে আপনার প্রথম পেজ এর পোস্ট গুলোকে ছোট করে “More” বাটন যোগ করলেন ? আমাকে একটু জানান । আমার ব্লগে এই বিষয়ে কমেন্ট করলে হবে । ধন্যবাদ ।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s